Read Time:6 Minute, 15 Second

তিনি বহু বছরের মধ্যে পঞ্চম খরা সোমালিয়াকে তীরে নিয়ে এসেছেন, যা একটি মারাত্মক দুর্ভিক্ষের আশঙ্কা বাড়িয়ে তুলেছে। গুরুতর তীব্র অপুষ্টিতে ইতিমধ্যে শত শত শিশু মারা গেছে। এ বছর সোমালিয়ার আশেপাশের পুষ্টি কেন্দ্রগুলোতে প্রায় ৭৩০ জন শিশু মারা গেছে বলে মঙ্গলবার জানিয়েছে জাতিসংঘের শিশু বিষয়ক সংস্থা ইউনিসেফ।

পুষ্টি কেন্দ্রগুলি গুরুতর তীব্র অপুষ্টিতে ভুগছেন এমন শিশুদের সহায়তা করে।

হর্ন অব আফ্রিকায় আসন্ন দুর্ভিক্ষের বিষয়ে জাতিসংঘ সতর্ক করার একদিন পর এই ঘোষণা দেওয়া হয়েছে। এই অঞ্চলটি তার টানা পঞ্চম ব্যর্থ বর্ষা মৌসুমের মুখোমুখি হচ্ছে।

ইউনিসেফের সোমালিয়া প্রতিনিধি ওয়াফা সাঈদ বলেন, ‘অপুষ্টি এক অভূতপূর্ব পর্যায়ে পৌঁছেছে।

বিশেষ করে দুর্ভিক্ষের ঝুঁকিতে থাকা শিশুরা

সাঈদ বলেন, ‘চলতি বছরের জানুয়ারি থেকে জুলাইয়ের মধ্যে সারাদেশের পুষ্টি কেন্দ্রগুলোতে প্রায় ৭৩০ জন শিশু মারা গেছে বলে জানা গেছে।

জেনেভায় মোগাদিশুর একটি ভিডিও-লিঙ্কের মাধ্যমে সাংবাদিকদের সঙ্গে কথা বলছিলেন তিনি।

তিনি বলেন, ‘এটি এমন এক শতাংশেরও কম শিশু যারা ভর্তি, সুস্থ হয়ে উঠেছে এবং ছেড়ে দেওয়া হয়েছে। তবে আমরা এটাও মনে করি যে এই সংখ্যাটি আরও বেশি হতে পারে, কারণ অনেক শিশু মৃত্যুর খবর পাওয়া যায় না।

ইউনিসেফ জানিয়েছে, চলতি বছরের শুরু থেকে জরুরি পানি সরবরাহের জন্য যেসব অর্থ সহায়তা গ্রুপগুলো অর্থ প্রদান করে, সেগুলোও ৫৫ শতাংশ থেকে ৮৫ শতাংশ বেড়েছে। কর্মকর্তারা বলছেন, ইসলামপন্থী গোষ্ঠী আল-শাবাবের দ্বারা প্রণীত সহিংসতাও আংশিকভাবে দায়ী।

ইউনিসেফের ওই কর্মকর্তার মতে, প্রায় ১৫ লাখ শিশু তীব্র অপুষ্টির ঝুঁকিতে রয়েছে। এদের মধ্যে প্রায় অর্ধেকই পাঁচ বছরের কম বয়সী।

তিনি আরও বলেন, গুরুতর তীব্র অপুষ্টির জন্য ৩,৮৫,০ শিশুর চিকিৎসার প্রয়োজন হতে পারে।

‘আমরা কাজ করার জন্য অপেক্ষা করতে পারি না’ WFP DW কে বলে

ডিডব্লিউ তার দেশ সফরের পর জাতিসংঘের ওয়ার্ল্ড ফুড প্রোগ্রাম (ডাব্লুএফপি) থেকে পেট্রোক উইলটনের সাথে কথা বলেছে।

উইলটন সতর্ক করে দিয়ে বলেন, এই দুর্ভিক্ষ ‘সবচেয়ে ঝুঁকিপূর্ণ মানুষকেই প্রথমে প্রভাবিত করবে। আর সেটা হলো ছোট বাচ্চারা। এটা বয়স্করা। যারা প্রতিবন্ধী দের নিয়ে বেঁচে আছে। এটা তারাই যারা সংঘাতের কারণে অভ্যন্তরীণভাবে বাস্তুচ্যুত হয়েছে।

“আমরা দুর্ভিক্ষের ঘোষণার জন্য অপেক্ষা করতে পারি না,” ডাব্লুএফপি কর্মকর্তা বলেন, “২০১১ সালে, সোমালিয়ার সর্বশেষ বড় দুর্ভিক্ষ যা এক মিলিয়নের এক চতুর্থাংশেরও বেশি মানুষের প্রাণ কেড়ে নিয়েছিল, যারা মারা গিয়েছিল তাদের অর্ধেকই সরকারী ঘোষণার আগেই মারা গিয়েছিল।

“এটি একটি অস্বাভাবিকভাবে গুরুতর খরা, কিন্তু সোমালিয়া খরা, বন্যা, ক্রান্তীয় ঝড়ের জন্য খুব ঝুঁকিপূর্ণ, তারা ঘটতে থাকে,” উইলটন ডয়চে ভেলেকে বলেন।

খরা সোমালিয়াকে সংকটের দিকে ঠেলে দিচ্ছে

সোমালিয়া এক দশকেরও বেশি সময়ের মধ্যে তার দ্বিতীয় দুর্ভিক্ষের দ্বারপ্রান্তে রয়েছে, খরার কারণে বিশ্বব্যাপী খাদ্যের দাম বাড়ছে।

সাঈদ মঙ্গলবার ব্যাখ্যা করেছিলেন যে খরার কারণে শুকনো জলের উত্সগুলির কারণে জল এবং স্যানিটেশন সংকট দেখা দিয়েছে।

তিনি বলেন, “অতিরিক্ত ব্যবহারের কারণে তাদের মধ্যে অনেকেই শুকিয়ে গেছে এবং আমাদের প্রায় ৪.৫ মিলিয়ন লোক রয়েছে যাদের জরুরি জল সরবরাহের প্রয়োজন,” তিনি বলেন।

সাঈদ বলেন, “একটি অপুষ্ট শিশু যতই খাবার খান না কেন, যদি সে বিশুদ্ধ পানি না পায়, তাহলে তারা সুস্থ হয়ে উঠতে পারবে না।

তীব্র অপুষ্টিতে ভোগা শিশুদের মধ্যে রোগের প্রাদুর্ভাবের বিপদ সম্পর্কেও তিনি সতর্ক করেছিলেন।

জাতিসংঘ বিশ্ব নেতাদের প্রতি আহ্বান জানিয়েছে, তারা যেন খুব বেশি দেরি হয়ে যাওয়ার আগেই এই সংকটে সাড়া দেয় এবং ২০১১ সালে এই অঞ্চলে যে ভয়াবহ দুর্ভিক্ষের ঘটনা ঘটে, তার পুনরাবৃত্তি এড়াতে পারে।

জাতিসংঘের সংস্থাগুলো সতর্ক করে দিয়ে বলেছে, সোমালিয়ার প্রায় অর্ধেক মানুষ ক্ষুধার সংকটে ভুগছে এবং কেনিয়া ও ইথিওপিয়ায় বসবাসকারী মানুষও এতে ক্ষতিগ্রস্ত হবে।

Happy
Happy
0 %
Sad
Sad
0 %
Excited
Excited
0 %
Sleepy
Sleepy
0 %
Angry
Angry
0 %
Surprise
Surprise
0 %

Average Rating

5 Star
0%
4 Star
0%
3 Star
0%
2 Star
0%
1 Star
0%

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না।

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.

Previous post বাংলাদেশের সঙ্গে অর্থনৈতিক অংশীদারিত্বের আলোচনা শুরু করবে ভারত
সর্বকালের সেরা অ্যাকশন মুভি Next post সর্বকালের সেরা অ্যাকশন মুভি
Close
%d bloggers like this: